BCS Bangla Lecture – 11

সমার্থক শব্দ

সমার্থক মানে একার্থক বা অনুরূপ অর্থবিশিষ্ট। বাংলা শব্দভাণ্ডারের বেশ কিছু শব্দ অন্য একটি শব্দের অনুরূপ অর্থ প্রকাশ করে, এরূপ শব্দকে সমার্থক শব্দ বা প্রতিশব্দ (Synonym) বলে। সমার্থক শব্দ সৃষ্টিশীল সাহিত্য ও মননশীলতার ভূষণ। এর মাধ্যমে ভাষার শব্দভাণ্ডার সমৃদ্ধ হয়। রচনায় শাব্দিক বৈচিত্র্য আসে এবং বাক্যের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়। নিচে গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় সমার্থক শব্দের উদাহরণ দেওয়া হলো।

অন্ধকার
আঁধার, আন্ধার, তিমির, তমসা, শর্বর, নভাক, নিরালোক, অমা


অন্ন
ভাত, ওদন, আহার, তণ্ডুল, খাবার, ভোজ্য, আহার্য, রসদ, অন্নজল, দানাপানি, খানা


আলো
কর, কিরণ, রশ্মি, প্রভা, বিভা, আভা, দীপ্তি, অংশু, ময়ূখ, উদ্ভাস, দ্যুতি, ভাতি, ঔজ্জ্বল্য, রওশন, নুর, চাকচিক্য, জৌলুস, জ্যোতি, ভাস, প্রদ্যোত, ছটা


আকাশ
আসমান, অম্বর, গগন, নভঃ, ব্যোম, অন্তরীক্ষ, সুরপথ, ইথার, দ্যুলোক, ছায়ালোক, নীলিমা, শূন্যলোক, খ, অভ্র, নভস্তল, নভোমণ্ডল, ত্রিদিব, তারাপথ


আগুন
অগ্নি, অনল, পাবক, বহ্নি, হুতাশন, বৈশ্বানর, বায়ুসখা, শিখা, দহন, জ্বলন, শিখিন, বিশ্বপা, কৃশানু, আতশ, আগ, বীতিহোত্র, সপ্তাংশু, অর্চি


ঈশ্বর
আল্লাহ, খোদা, জগদীশ, জগৎপতি, ধাতা, বিধাতা, বিভু, বিধি, ভগবান, সৃষ্টিকর্তা, স্রষ্টা, বিশ্বপতি, পরমাত্মা, ইলাহি, প্রভু, ঈশ, মাবুদ, ব্রহ্মা, পরমেশ, অন্তর্যামী, জগন্নাথ, জগন্ময়, প্রজাপতি, রক্ষক, মনিব, আদিনাথ, পৃথ্বীশ, অমরেশ, লোকনাথ, নিরঞ্জন, পরেশ, মওলা, পতিতপাবন, দেবতা, অমর, দেব, সুর, ত্রিদশ, অজর, ঠাকুর, অধিপতি, ঈশ্বর, বিধায়ক, মালিক, নাথ, সবিতা


কালো
কৃষ্ণ, কুৎসিত, অসিত, শ্যাম, শ্যামল


কাক
বায়স, বলিভুক, পরভৃৎ, বৃক, বলিপুষ্ট, অন্যভৃৎ, কাকল


কবুতর
পায়রা, কপোত, পারাবত, প্রাসাদকুক্কুট, গৃহবাজ, গেরবাজ, লক্কা, নোটন


কপাল
ললাট, ভাল, ভাগ্য, অলিক, নিয়তি, অদৃষ্ট


কন্যা
নন্দিনী, তনয়া, দুহিতা, মেয়ে, দুলালি, বেটি, আত্মজা, তনুজা, ঝি, বালিকা, ঝিয়ারি, পুত্রী, দারিকা, পুত্রিকা, কুমারী, স্বজা, সুতা, কনে, খুকি, অঙ্গজা


কোকিল
পরভৃত, পিক, পরপুষ্ট, অন্যপুষ্ট, অন্যভৃত, কাকপুষ্ট, মধুবন, মধুসখ, মধুস্বর, কলকণ্ঠ, কাকপুচ্ছ, কুহুকণ্ঠ, কলঘোষ


গৃহ
ঘর, আলয়, নিলয়, নিকেতন, সদন, বাড়ি, আবাস, নিবাস, বাটি, কুঠুরি, কুঠি, কুটির, আগার, ধাম, ভবন, আশ্রয়, বাসস্থান, গেহ, কোঠা, কামরা, কাটরা, মহল, প্রকোষ্ঠ, রুম, কেবিন, খোপ, চেম্বার, হল, ঘুপসি, অট্টালিকা, প্রাসাদ


ঘোড়া
অশ্ব, ঘোটক, তুরঙ্গম, তুরঙ্গ, তুরগ, মরুদ্রথ, টাঙন, হয়, বাজী, বাহনশ্রেষ্ঠ, হ্রেষী, বামী, বড়বা


চুল
অলক, কুন্তল, চিকুর, কবরী, কেশ, কেশর, কচ, শিরোজ, শিরোরুহ, মূর্ধজ, কৃশলা


চাঁদ
চন্দ্র, নিশাকর, বিধু, শশধর, শশাঙ্ক, মৃগাঙ্ক, সুধাংশু, হিমাংশু, সিতাংশু, কলাভৃৎ, কলানিধি, কলাধর, শশী, সোম, সুধাকর, কুমুদনাথ, নিশানাথ, নিশাকর,নিশাকান্ত, নিশাপতি, ইন্দু, হিমকর, সুধানিধি, সুধাকর, রজনীকান্ত, দ্বিজরাজ, দ্বিজপতি, দ্বিজেন্দ্র, রাকেশ, তারাপতি, তারানাথ, তারাধিপ, রাকা, সিতকর, পূর্ণেন্দু, বালেন্দু, মাহতাব, তমোহর


চোখ
অক্ষি, চক্ষু, নয়ন, নেত্র, লোচন, আঁখি, ঈক্ষণ, দৃষ্টি, দৃক


জল
অম্বু, জীবন, নীর, পানি, সলিল, বারি, উদক, পয়, অম্ভ, অর্ণ, বারুণ, অপ, তোয়, পুষ্কর, সুধা, শম্বর, ইলা


ঢেউ
ঊর্মি, বীচি, কল্লোল, উল্লোল, হিল্লোল, লহরি, তরঙ্গ, উপচেপড়া, জোয়ার, জলকল্লোল, কটাল, ঘূর্ণি, মৌজ, উৎকলিকা, জলোচ্ছ্বাস, জলস্ফীতি


তীর
ক‚ল, তট, বেলাভূমি, ধার, কিনারা, পুলিন, চড়া, বেলা, সৈকত, বালুকাবেলা, পার, পাড়, আড়া, কচ্ছ, তড়, চর, ডাঙা, পাটক, প্রতীর


দিন
দিবস, দিবা, দিনমান, অহ্ন, অহ, অহন, বাসর, বার, রোজ, সাবন, চব্বিশঘণ্টা, অষ্টপ্রহর


দোকান
বিপণি, আপণ, পসার, পণ্যগৃহ, পণ্যশালা


দেহ
গাত্র, গা, তনু, শরীর, কায়া, অঙ্গ, কলেবর, বপু, গতর, ভোগায়তন, প্রত্যঙ্গ, উপাঙ্গ, অবয়ব


ধন
অর্থ, বিত্ত, বিভব, বিভূতি, সম্পদ, সম্পত্তি, নিধি, ঐশ্বর্য, টাকা


নর
পুরুষ, মানব, জন, লোক, ব্যক্তি, মরদ, মর্দ, যুবক, জোয়ান


নারী
অবলা, কামিনী, ভামিনী, মহিলা, স্ত্রীলোক, রমণী, রমা, মেয়েছেলে, মেয়েলোক, ললনা, অঙ্গনা, জেনানা, কান্তা, সীমন্তিনী, মানবী, আওরৎ, যোষিৎ, বালা, যুবতী, প্রমদা, তিলোত্তমা, সুস্মিতা, সুচিস্মিতা, রামা, বামা, সুন্দরী, লক্ষ্মী, অনসূয়া, অপ্সরী, আয়তি, পোয়াতি


নদী
তটিনী, স্রোতস্বতী, স্রোতস্বিনী, স্রোতবহ, তরঙ্গিনী, প্রবাহিণী, নির্ঝরিণী, সমুদ্রদয়িতা, সমুদ্রকান্তা, কল্লোলিনী, শৈবালিনী, সরিৎ, গাঙ, নদ, মন্দাকিনী, গিরি-নিস্রাব, অপগা, দ্রবন্তী, ধুনী, পয়স্বিনী


পর্বত
অচল, অদ্রি, গিরি, পাহাড়, ভূধর, শৈল, নগ, অগ, পৃথ্বীধর, শৃঙ্গ, শিখরী, মহীধর, ভূভৃৎ, ধরাধর, ক্ষিতিধর, নগাধিপ, সানুমান, বলাহক


পিতা
আব্বা, বাবা, বাপ, জনক, জনিতা, জন্মদাতা, আব্বু, ফাদার, পাপা, ড্যাড


পুত্র
ছেলে, তনয়, তনুজ, নন্দন, সুত, দারক, বেটা, দুলাল, খোকা, পুত্তুর, আত্মজ, অঙ্গজ, স্বজ, কুমার


পৃথিবী
অবনী, ধরা, ধরণি, ধরিত্রী, বসুন্ধরা, বসুধা, বসুমতি, ভূ, মেদিনী, দুনিয়া, জগৎ, ভুবন, বিশ্ব, পৃথ্বী, মর্ত্য, ধরাতল, মহি, ক্ষিতি, ব্রহ্মাণ্ড, অখিল, উর্বী, ইলা, ইরা, অদিতি, ভূতল, ভূলোক, ধরাধাম, জাহান, ক্ষৌণি


পদ্ম
পঙ্কজ, কুমুদ, শালুক, শতদল, অরবিন্দ, নলিনী, নলিন, রাজিব, তামরস, উৎপল, কমল, কুবলয়, সরসিজ, সরোজ, ইন্দিবর,পুষ্কর, কোকনদ, পুণ্ডরীক, কৈরব,কুবল, শ্রীপর্ণ, সলিলজ, বিসকুসুম, বিসজ, কঞ্জ, নীরজ, অম্বুজ


পাখি
বিহগ, বিহঙ্গ, বিহঙ্গম, পক্ষী, খগ, দ্বিজ, শকুন্ত, খেচর, চিড়িয়া,পতত্রি, পতগ, পতঙ্গ, গরুড়, পত্রী, পাখপাখালি, খগম


ফুল
পুষ্প, প্রসূন, রঙ্গন, কুসুম, মুঞ্জরি, সুমন


বন
অরণ্য, কুঞ্জ, অটবি, জঙ্গল, কানন, বাগান, বাগিচা, বনানী, বাদাড়, ঝোপ, বিপিন, কান্তার,দাব


বিদ্যুৎ
তড়িৎ, চপলা, চঞ্চলা, অশনি, ক্ষণপ্রভা, দামিনী, সৌদামিনী, বিজলি, শম্পা, অনুভা, ইরম্মদ


বাতাস
হাওয়া, বায়ু, পবন, সমীর, সমীরণ, মরুৎ, বাত, প্রভঞ্জন, অনিল, গন্ধবহ, বায়, পবমান,সদাগতি,নভঃপ্রাণ, শব্দবহ, বহ্নিমিত্র, খগ


বৃক্ষ
পাদপ, গাছ, তরু, বিটপী, মহীরূহ, শাখী, শিখরী, পর্ণী, উদ্ভিদ, পল্লবী, দ্রুম, স্কন্ধী, ভূপদ, গাছগাছালি, বনস্পতি, তরুবর, ক্ষিতিজ


মাতা
গর্ভধারিণী, প্রসূতি, মা, জননী, আম্মা, জন্মদাত্রী, জনিত্রী, জনিকা, জনি, অম্বা, অম্বিকা, আই, প্রজনিকা, সবিত্রী


ময়ূর
কেকী, শিখী, শিখণ্ডী, কলাপী, বর্হী


মৃত্যু
ইন্তেকাল, চিরবিদায়, দেহত্যাগ, পঞ্চত্বপ্রাপ্তি, পরলোক-গমন, দেহান্ত, লোকান্তর-গমন, মরণ, নাশ, বিনাশ, নিধন, সংহার, অন্ত, নিপাত, ইহলীলা-সংবরণ, ওফাৎ, মহানিদ্রা, মহাপ্রয়াণ, কালনিদ্রা, পটলতোলা, ভাবলীলা-সাঙ্গ, প্রাণত্যাগ, মহাযাত্রা


মেঘ
বারিদ, জলধর, জলদ, নীরদ, ঘন, অভ্র, অম্বুবাহী, অম্বুদ, অম্বুধর, জীমূত, বারিবাহ, কাদম্বিনী, পয়োদ,পয়োধি, পয়োধর, তোয়দ, তোয়ধর, পর্জন্য, বলাহক, নীরধর, উদধি, দেয়া


যুদ্ধ
বিগ্রহ, রণ, লড়াই, সংগ্রাম, সংঘর্ষ, সংঘাত, সমর, জিহাদ, আহব, যোধন, জঙ্গ,প্রতিদারণ, যুঝ, অনীক


রাজা
নৃপতি, নৃপ, নরপতি, ভূপতি, ভূপাল, ভূপ, মহিপাল, মহিনাথ, মহীন্দ্র, মহিপ, মহিপতি, মহীশ, দণ্ডধর, নরেন্দ্র, নরাধিপ, নরেশ, অধীশ্বর, সম্রাট, শাহেনশা, ক্ষিতিপ, ক্ষিতীশ, ক্ষিতিপাল, রাজাধিরাজ, জাঁহাপনা, রাজড়া, পাতশা, বাদশা, রাজন্য, অধীশ, অধিপ, অধিভূ, শাসক, নৃপবর, অবনীশ, ঔষ্ণীক, ছত্রপতি, ক্ষৌণীশ


রাত
নিশি, নিশা, নিশীথ, নিশীথিনী, রজনী, তমা, তামসী, নক্ত, ক্ষপা, ত্রিযামা, নিশুতি, যামী, যামিনী, যামবতী, শর্বরী, বিভাবরী, ক্ষণদা, রাত্রি, তারকিণী


শত্রু
অরি, বৈরী, রিপু, অরাতি, প্রতিপক্ষ, বিপক্ষ, দুশমন, বিদ্বেষী,অমিত্র, বিরোধী


সাদা
শুভ্র, শুক্ল, শ্বেত, শুচি, সিত, বিশদ, ধবল, সফেদ


সূর্য
আদিত্য, তপন, দিনপতি, দিননাথ, দিবাকর, দিবানাথ,দিবাবসু, দিনেশ, দিনমণি, দিনকর, প্রভাকর, ভাস্কর, ভানু, মার্তণ্ড, রবি, সবিতা, বিভাবসু, বিভাকর, অর্যমা, বিবস্বান, অংশুমান, অংশুমালী, কিরণমালী, ময়ূখমালী, অর্ক, বালার্ক, পূষা, পূষন, সূর, মিহির, অরুণ, ঊষাপতি, আফতাব,খগ,সুতপা, সুরুজ, তমোহর


স্ত্রী
বউ, বধূ, পত্নী, সহধর্মিনী, অর্ধাঙ্গী, অর্ধাঙ্গিনী, দয়িতা, জায়া, গৃহিনী, গিন্নি, দার, ভার্যা, কলত্র, বনিতা, ঘরনি, ইলা


স্বর্গ
বেহেশত, অমরাবতী, দেবালয়, দিব্যলোক, দেবপুরী, দেবলোক, দেবভূমি, ইন্দ্রলোক, ইন্দ্রালয়, ইন্দ্রপুরী, পুণ্যলোক, অমৃতলোক, ঊর্ধ্বলোক, সুরলোক, ত্রিদিব, ত্রিদশালয়, সুরপুর, জান্নাত, অমরলোক, অমরালয়, অমরধাম, সুখাধার, আনন্দলোক, হেভেন


সাপ
অহি, আশীবিষ, নাগ, ফণি, ভুজঙ্গ, ভুজঙ্গম, ভুজগ, সর্প, বিষধর, ফণাধর, পন্নগ, দ্বিজিহ্ব, কাকোদর,অকর্ণ, উরগ, উরঙ্গ, উরঙ্গম, দ্বিরসন


সিংহ
কেশরী, হর্যক্ষ, মৃগরাজ, মৃগেন্দ্র, পশুরাজ, রক্তজিহ্ব, সিংহী


সমুদ্র
অর্ণব, জলধি, জলনিধি,পয়োধি,পারাবার, বারীশ, বারীন্দ্র, বারিধি, অম্বুধি, অম্বুনিধি, অম্বুনাথ, অম্বুরাশি,উদধি, তোয়ধি, রত্নাকর, সাগর, সিন্ধু, দরিয়া, পাথার, অকূল, সায়র, নীলাম্বু, দ্বীপী, নদীকান্ত, প্রচেতা, সরিৎপতি, অম্ভোধি, অম্ভোনিধি


সুন্দর
মনোরম, মনোহর, শোভন, সুদৃশ্য, চারু, রমণীয়, রম্য, কমনীয়, কান্তিমান, কান্তিময়, লাবণ্যময়, সুদর্শন, সুকান্ত, কান্তিময়, সুচারু, শোভা, শোভাময়, সুরম্য, সুশ্রী, সুশোভন, চমৎকার, মঞ্জুল, নয়নাভিরাম, ললিত, সুকুমার, চোখজুড়ানো, অপরূপ


স্বর্ণ
সোনা, সুবর্ণ, কাঞ্চন, কনক, হিরণ, হিরণ্য, হেম


হাত
কর, বাহু, ভুজ, হস্ত, পাণি


হাতি
কুঞ্জর, করী, গজ, দিগ্গজ, মাতঙ্গ, হস্তী, দ্বিপ,দন্তী, বারণ, ঐরাবত, দ্বিরদ, নাগ,করেণু, পিল, রদী, রদনী, মাকনা, ইরম্মদ, দন্তাবল


হরিণ
মৃগ, ঋষ্য, সুনয়ন, সারঙ্গ, কুরঙ্গ, কুড়ঙ্গম, শম্বর, এণ


নমুনা প্রশ্ন

১. ‘হস্তী’ কোন শব্দের সমার্থক?

ক) দ্বিপ

খ) দ্বীপ

গ) মৃগ

ঘ) দীপ

উত্তরঃ ক

২. ‘শম্বর’ শব্দের অর্থ কী?

ক) ঘোড়া

খ) হরিণ

গ) উট

ঘ) গাঁধা

উত্তরঃ খ

৩. কোনটি ব্যতিক্রম?

ক) অসিত

খ) শ্যামল

গ) কৃষ্ণ

ঘ) শিখী

উত্তরঃ ঘ

৪. ‘গাভী’ শব্দের সমার্থক –

ক) তনু

খ) ধেনু

গ) নিধি

ঘ) পিক

উত্তরঃ খ

৫. ‘ফুল’ শব্দের সমার্থক কোনটি?

ক) রঙ্গন

খ) অটবী

গ) রাজন্য

ঘ) বিপিন

উত্তরঃ ক

৬. কোনটি ভিন্নার্থক – 

ক) জলধি

খ) অর্ণব

গ) জলদ

ঘ) পারাবার

উত্তরঃ গ

৭. ‘সূর্য’ শব্দের সমার্থক – 

ক) কাঞ্চন

খ) মার্তণ্ড

গ) সুকান্ত

ঘ) হিরণ

উত্তরঃ খ

৮. ‘পৃথিবী’ এর প্রতিশব্দ নয় কোনটি?

ক) অখিল

খ) অদিতি

গ) বসুধা

ঘ) আদিত্য

উত্তরঃ ঘ

৯. ‘কূল’ এর সমার্থক শব্দ – 

ক) পুলিন

খ) বারুণ

গ) সরিৎ

ঘ) সাবন

উত্তরঃ ক

১০. ‘শিষ্টাচার’ এর সমার্থক শব্দ – 

ক) নিষ্ঠা

খ) সদাচার

গ) সততা

ঘ) সংযম

উত্তরঃ খ

১১. ‘কুজঝটিকা’ এর প্রতিশব্দ – 

ক) কুহেলি

খ) প্রভাময়

গ) অন্ধকার

ঘ) গোধূলি

উত্তরঃ ক

১২. সমার্থক যুগ্ম শব্দ নির্ণয় কর?

ক) আকাশ-বাতাস

খ) কালি-কলম

গ) দিন-দিন

ঘ) হাসি-খুশি

উত্তরঃ ঘ

১৩. কোনটি ‘সাপ’ শব্দের প্রতিশব্দ?

ক) ভুজঙ্গ

খ) করী

গ) মাতঙ্গ

ঘ) কুঞ্জর

উত্তরঃ ক

১৪. ‘ময়ূর’ এর সমার্থক শব্দ হল-

ক) শিখরী

খ) আহব

গ) বামা

ঘ) কলাপী

উত্তরঃ ঘ

১৫. ‘কুল’ শব্দের সমার্থক শব্দ নয় কোনটি?

ক) সামাজ

খ) তট

গ) কৌলীন্য

ঘ) গৃহ

উত্তরঃ খ

১৬. ‘অশ্ব’-এর সমার্থক শব্দ-

ক) তুরঙ্গ

খ) তুরঙ্গম

গ) ঘোটক

ঘ) সবগুলো

উত্তরঃ ঘ

১৭. ‘করী’ শব্দের অর্থ কী?

ক) হরিণ

খ) পাখি

গ) হাতি

ঘ) মূল্য

উত্তরঃ গ

১৮. ‘স্কন্ধ’ শব্দটির প্রতিশব্দ কোনটি?

ক) অংশ

খ) অংস

গ) অংষ

ঘ) সবগুলো

উত্তরঃ খ

১৯. ‘বাণী’ শব্দের অর্থ যদি বাক্য হয় তবে ‘বানি’ শব্দের অর্থ কী?

ক) কথা

খ) পারিশ্রমিক

গ) তীর

ঘ) বন্যা

উত্তরঃ খ

২০. কোন শব্দটি ভিন্নার্থক?

ক) কামিনী

খ) রামা

গ) অঙ্গনা

ঘ) চারু

উত্তরঃ ঘ

২১. কোন শব্দটি ভিন্নার্থক?

ক) বিহগ

খ) বিহঙ্গ

গ) গরুড়

ঘ) ভূজঙ্গ

উত্তরঃ ঘ

২২. কোন শব্দটির অর্থ শ্মশ্রু?

ক) দাঁড়ী

খ) দাড়ি

গ) দাঁড়ি

ঘ) দ্বাড়ি

উত্তরঃ খ

২৩. ‘চুল’ এর সমার্থক শব্দ কোনটি?

ক) লোচন

খ) কুন্তল

গ) উষ্ণীষ

ঘ) উর্ণা

উত্তরঃ খ

২৪. ‘সূর্য’ এর সমার্থক শব্দ কোনটি?

ক) অর্চি

খ) অর্ণব

গ) সবিতা

ঘ) কুমুদরঞ্জন

উত্তরঃ গ

২৫. ‘সূর্য’ এর সমার্থক শব্দ –  

ক) বিবস্মান

খ) মরুৎ

গ) উরগ

ঘ) ক্ষিতি

উত্তরঃ ক

২৬. ‘জাঙ্গাল’ এর প্রতিশব্দ –

ক) স্তূপ

খ) আবর্জনা

গ) বাঁধ

ঘ) জঙ্গল

উত্তরঃ গ

২৭. ‘হাহাকার’ এর সমার্থক শব্দ – 

ক) বিলাপ

খ) আহাজারি

গ) রোনাজারি

ঘ) অশ্রু

উত্তরঃ খ

২৮. ‘রাত’ ও ‘ক্ষীণ’ শব্দ দুটির বিকল্প শব্দ – 

ক) যামিনী, আত্মা

খ) বিভাবরী, শীর্ণ

গ) নিশীথ, হৃদয়

ঘ) রজনী, অনুগ্রহ

উত্তরঃ খ

২৯. ‘মৎকুণ’ শব্দের সমার্থক শব্দ – 

ক) গরু

খ) উকুন

গ) খরগোশ

ঘ) ছারপোকা

উত্তরঃ ঘ

৩০. ‘নীর’ শব্দের সমার্থক শব্দ – 

ক) অগ্নি

খ) চন্দ্র

গ) গৃহ

ঘ) জল

উত্তরঃ ঘ

৩১. ‘মরুৎ’ শব্দের সমার্থক শব্দ – 

ক) পানি

খ) বাতাস

গ) মাটি

ঘ) মরুদ্যান

উত্তরঃ খ

৩২. ‘বসুমতি’ শব্দটির সমার্থক – 

ক) ধরিত্রী

খ) ফুল

গ) গিরি

ঘ) কানন

উত্তরঃ ক

৩৩. ‘দৌরাত্ম্য’ শব্দের সমার্থক শব্দ – 

ক) উপদ্রব

খ) উম্মাদ

গ) উত্তেজনা

ঘ) উজ্জ্বল

উত্তরঃ ক

৩৪. ‘হস্তী’ এর সমার্থক শব্দ – 

ক) তুরগ

খ) কুঞ্জর

গ) শম্বর

ঘ) বাজী

উত্তরঃ খ

৩৫. ‘নৈকট্য’ শব্দের প্রতিশব্দ কোনটি – 

ক) আকাঙ্ক্ষা

খ) আসক্তি

গ) আসত্তি

ঘ) অনুরাগ

উত্তরঃ গ

৩৬. ‘রাত্রি’ এর শব্দের সমার্থক শব্দ কোনটি – 

ক) শর্বরী

খ) শম্পা

গ) কবরী

ঘ) শশী

উত্তরঃ ক

৩৭. কোন শব্দটি ‘ঘর’ শব্দটির সমার্থক নয়?

ক) আবাস

খ) নিকেতন

গ) ধরণী

ঘ) সদন

উত্তরঃ গ

৩৮. ‘সূর্য’ শব্দটির সমার্থক কোনটি নয়?

ক) ভানু

খ) রবি

গ) ভাস্কর

ঘ) দ্বিজরাজ

উত্তরঃ ঘ

৩৯. ‘বাতাস’ এর প্রতিশব্দ কোনটি?

ক) প্রভঞ্জন

খ) অপ

গ) অম্বু

ঘ) অদ্রি

উত্তরঃ ক

৪০. কোনটি ‘অগ্নি’ এর প্রতিশব্দ?

ক) বৈশ্বানর

খ) কৃশানু

গ) হুতাশন

ঘ) সবগুলোই

উত্তরঃ ঘ

তথ্যসূত্র:

১. রফিকুল ইসলাম, পবিত্র সরকার ও মাহবুবুল হক, প্রমিত বাংলা ব্যবহারিক ব্যাকরণ (বাংলা একাডেমি, জানুয়ারি ২০১৪)
২. রফিকুল ইসলাম ও পবিত্র সরকার, প্রমিত বাংলা ভাষার ব্যাকরণ, প্রথম খণ্ড (বাংলা একাডেমি, ডিসেম্বর ২০১১)
৩. মুনীর চৌধুরী ও মোফাজ্জল হায়দার চৌধুরী, বাংলা ভাষার ব্যাকরণ (ফেব্রুয়ারি ১৯৮৩)
৪. নির্মল দাশ, বাংলা ভাষার ব্যাকরণ ও তার ক্রমবিকাশ (বিশ্বভারতী ২০০০)
৫. কাজী দীন মুহম্মদ ও সুকুমার সেন, অভিনব ব্যাকরণ (ঢাকা ১৯৪৮)
৬. মুহম্মদ আবদুল হাই, ধ্বনিবিজ্ঞান ও বাংলা ধ্বনিতত্ত্ব (১৯৬৪)
৭. ড. হায়াৎ মামুদ, ভাষাশিক্ষা : বাংলা ভাষার ব্যাকরণ ও নির্মিতি (২০০৪)
৮. ড. মো. মুস্তাফিজুর রহমান, ভাষাবিধি : বাংলা ভাষার ব্যাকরণ ও প্রবন্ধ রচনা (আদিল ব্রাদার্স, জানুয়ারি ২০০৯)
৯. ড. সৌমিত্র শেখর, বাংলা ভাষা ও সাহিত্য জিজ্ঞাসা (অগ্নি পাবলিকেশন্স, এপ্রিল ২০০৪)
১০. ড. মুহম্মদ এনামুল হক ও শিবপ্রসন্ন লাহিড়ী, ব্যবহারিক বাংলা অভিধান (বাংলা একাডেমি, স্বরবর্ণ অংশ: ডিসেম্বর ১৯৭৪ ও ব্যঞ্জনবর্ণ অংশ: জুন ১৯৮৪)
১১. জামিল চৌধুরী, বাংলা বানান অভিধান (বাংলা একাডেমি, জুন ১৯৯৪)
১২. মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান, শুদ্ধিকরণ (প্রফেসর’স প্রকাশন, ২০০৬)
১৩. স্বরোচিষ সরকার, বাংলাদেশের কোষগ্রন্থ ও শব্দসন্ধান (বাংলা একাডেমি, মে ২০১০)
১৪. জামিল চৌধুরী, বাংলা বানান অভিধান (বাংলা একাডেমি, জুন ১৯৯৪)

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *